হোমনায় মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

মো. ইব্রাহিম খলিল, হোমনা, কুমিল্লা >>
কুমিল্লার হোমনায় মিথ্যা চাঁদাবাজির মামলার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগীরা। সোমবার সকাল ১০ টায় কাশিপুর মুক্তিযোদ্ধা গার্লস স্কুল এন্ড কলেজে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ভুক্তভোগী মো. গোলাম মাওলা।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন- ৭ নং ভাষানিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম চান মিয়া এর সময়ে জনগণের  ট্যাক্সের টাকা ও সাবেক মেম্বার তার পিতা মরহুম বজলুর রহমান ৪০০ টাকার বিনিময়ে পশ্চিম কাশিপুর মৌজার সাবেক ৮৮১ নং দাগে ৫ শতাংশ ভূমি ইউনিয়ন পরিষদের নামে ক্রয় করেন। বর্তমানে উক্ত ভূমির ওপর মার্কেট নির্মাণ করে বিভিন্ন ব্যক্তির নিকট ভাড়া দিয়ে পরিষদ ভোগ দখল করে আসছে।

১৯৯০ সালে ভূমি জরিপকালে সুকৌশলে ১০২ নং পশ্চিম কাশিপুর মৌজাম্থিত সাবেক ৮৮৬ নং দাগ দেখিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের নামে রেকর্ডকৃত ৮৮১ নং দাগের ও সরকারি ১ নং খাস খতিয়ান অন্তর্ভূক্ত ৭৬৬ নং দাগের ওপর বর্তমান বিএস ১০১৮/৩১৬০ দাগটি সৃজন করে সামসুল মিয়ার নামে রেকর্ড করে মালিকানা দাবি করে। ৩ মার্চ ২০১৯ খ্রি. জোরপূর্বক মার্কেটের দোকান ভাংচুর করে, টিউবওয়েল তুলে ফেলে, একটি নারিকেল গাছ কেটে ফেলে ও দোকান ঘর নির্মাণের চেষ্টা করে।

বর্তমান চেয়ারম্যান কামরুল ইসলামের সাথে আলোচনা করে ১৫ এপ্রিল ২০১৯ খ্রি. উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি তাৎক্ষণিকভাবে ঘর নির্মাণে বাধা প্রদান করেন। পরবর্তীতে ২৫ এপ্রিল ২০১৯ খ্রি. চেয়ারম্যান এবং সচিব আরো একটি প্রতিবেদন দাখিল করেন। এ বিষয়ে ৮ মে ২০১৯ খ্রি. দৈনিক মানবকন্ঠ পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা যথাযথ তদন্ত সাপেক্ষে প্রতিবেদন প্রেরণের জন্য সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) নির্দেশ দেন। তদন্ত শেষে উক্ত বিএস খতিয়ান বাতিলের জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) কোর্টে প্রতিবেদন দেন।

তিনি আরো উল্লেখ করেন- এর পর থেকে সামসুল হকের ওয়ারিশ মো. শাহআলম ও মোহাম্মদ আলী গং আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও শত্রুতা শুরু করে। এরই অংশ হিসেবে সামসুল হক ৬ জুন ২০১৯ খ্রি. কুমিল্লার জেলা প্রশাসক ও আমাকেসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে কুমিল্লা সহকারী জজ আদালতে মামলা দায়ের করে। পরবর্তীতে সামসুল হকের ছেলে শাহআলম ৬ আগস্ট ২০১৯ আমাকেসহ দোকানের মালিকদের নামে একটি মিথ্যা চাঁদাবাজির মামলা করে। আমি এই মিথ্যা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনের সময় অন্যান্যাের মধ্যে উপস্থিত ছিলের ভুক্তভোগী সৈয়দ হোসেন মীর ও মো. হেলাল মীর, মিজানুর রহমান, মনিরুল ইসলাম, আ’লীগের ইউনিয়ন বন বিষয়ক সম্পাদক মো. শাহজাহান ও সহ- দপ্তর সম্পাদক মো. বশির, ব্যবসায়ী মনিরুল ইসলাম স্বপন, এনু মিয়া, মো. আজিজুর রহমান, আবদুল আউয়াল প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: