হোমনায় করোনা প্রতিরোধে সার্কেল এএসপি মো. ফজলুল করিমের প্রচেষ্টা অব্যাহত

মো. ইব্রাহিম খলিল, হোমনা, কুমিল্লাঃ সারা দেশে করোনা ভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করলেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কুমিল্লার হোমনায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে মানুষকে বাঁচানোর লক্ষ্যে দিনরাত অভিযান অব্যাহত রেখেছেন (হোমনা-মেঘনা) সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. ফজলুল করিম।

কুমিল্লার হোমনায় সামাজিক (শারীরিক) দূরত্ব বজায় রেখে নিত্যপণ্য মাছ ,মাংস,তরকারি,সবজি ও দুধ বিক্রয়ের জন্য খোলা জায়গায় অস্থায়ী কাচাঁ বাজার নির্ধারণ করেন উপজেলা প্রশাসন । করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে বৃহস্পতিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাপ্তি চাকমা স্বাক্ষরিত চিঠিতে খোলা জায়গায় ৮ টি অস্থায়ী কাচাঁ বাজার নির্ধারণ করা হয় । গণসচেতনতার জন্য সেখানে ক্রেতারা ৩ ফুট দূরত্বে গোলাকার বৃত্ত চিহ্নিত করণের মাধ্যমে বাজার করতে হবে । এসব বাজারে প্রশাসনের দেওয়া নির্দেশনা সঠিকভাবে পালিত হচ্ছে কিনা তা নিশ্চিতকল্পে ও করোনা ভাইরাস সম্পর্কে এলাকাবাসীকে সচেতন করার লক্ষ্যে (হোমনা-মেঘনা) সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার তার প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছেন। এ লক্ষ্যে তিনি আজ শুক্রবার হোমনা সদরের শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম (বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন), ঘারমোড়া গরু বাজার মাঠ, দুলালপুর বাজার সংলগ্ন মাঠ,মিরাশ খেলার মাঠ,রামকৃষ্ণপুর বালুর মাঠ (ওয়াই ব্রিজ সংলগ্ন),দড়িচর ভূমি অফিস প্রাঙ্গন, কাশিপুর ভূমি অফিস প্রাঙ্গন ও ঘনিয়ারচর খেলার মাঠে নির্ধারিত বাজার কার্যক্রম মনিটরিং করেন । এসময় তিনি রাস্তায় চলাচলরত মানুষ, জনসমাগম ও যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেন।

জনগণের উদ্দেশে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, দিন দিন দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ থেকে রক্ষা পেতে হলে আমাদের আল্লাহর ওপর ভরসা এবং সচেতনতার বিকল্প নেই। একটু বুঝার চেষ্টা করুন, নিজে সচেতন হোন, অপরকে সচেতন করুন, বিনা প্রয়োজনে বিভিন্ন অজুহাতে ঘর থেকে বের হবেন না। নিজে বাঁচুন, দেশকে বাঁচান। কেউ সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জানা গেছে, শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে কাচাঁবাজার সরিয়ে খোলা মাঠে নির্ধারণ করা হয়েছে।তবে সীমিত আকারে চাল ,ডাল ও নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস বিক্রি করতে পারবে । ব্যবসায়ীদের সেখানে দূরত্ব বজায় রেখে সকাল ৬ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত পরবর্তী আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত অস্থায়ী বাজার চলতে থাকবে ।

প্রসঙ্গত, এএসপি মো. ফজলুল করিমের আন্তরিক প্রচেষ্টা ও দিনরাত পরিশ্রমের ফলে মানুষ এখন অনেকটাই সচেতন হচ্ছে এবং ঘরমুখী হচ্ছে। এছাড়াও তিনি জনগণকে সচেতন করার লক্ষ্যে সময়ে সময়ে দেশের সর্বশেষ করোনা পরিস্থিতি তার অফিসিয়াল ফেসবুক আইডি থেকে প্রচার করছেন। তার এসব কার্যক্রম সচেতন মহলের কাছে বেশ সাড়া জাগিয়েছে এবং এলাকাবাসীর প্রশংসায় তার কাজের গতি উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: