সরিষাবাড়ী পৌর মেয়র ও কাউন্সিলরদের পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন

তৌকির আহাম্মেদ হাসু সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি :
জামালপুরের সরিষাবাড়ী পৌরসভার মেয়রের বিরুদ্ধে ১২ কাউন্সিলরের স্বাক্ষরিত অনাস্থা নিয়ে পৌর মেয়র ও কাউন্সিলরদের পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন পৃথক পৃথক স্থানে অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শুক্রবার ১২ টায় সরিষাবাড়ী স্পোর্ট’স এসোসিয়েশন কার্যালয়ে কাউন্সিলরগণ এবং পৌর সভার মেয়র তার বাস ভবনে বিকেল ৪ টায় সময় এক সাংবাদিক সম্মেলন করা হয়েছে।পৌর মেয়র রোকনের বিরুদ্ধে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রাণালয়,বাংলাদেশ সচিবালয়ের সচিব বরাররসহ স্থানীয় সংসদ সদস্য তথ্য প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব ডাঃ মুরাদ হাসান,জেলা প্রশাসক জামালপুর,উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট অনুলিপি দিয়েছেন।

সাংবাদিক সম্মেলনে পৌর কাউন্সিলর কালা চান পাল লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। পৌর সভার মেয়র রুকুনুজ্জামান রোকনের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে পৌর কর্মকর্তা কর্মচারীদের ১৩-১৬ মাসের বেতন বকেয়া,কাউন্সিলরদের ১৩-১৪ মাসের সম্মানী বকেয়া রেখে মেয়র তার নিজের সম্মানী উত্তোলন করেছেন,নিয়োগ বাণিজ্যসহ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাদ দিয়ে বি এন পি জামাত ও তার আত্মীয়দের নিয়োগ ও নিয়োগ প্রাপ্তদের নিকট থেকে ১২-১৫ লাখ টাকার বিনিময়ে পৌর সভার চাকুরীতে নিয়োগ দিয়েছেন।এ ছাড়াও মেয়র বিভিন্ন ভুয়া ভাউচারে দুর্নীতি ও অনিয়মের মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ,অসদাচরণ,ক্ষমতার অপব্যবহার,ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম দুর্নীতি,এডিপি’র অর্থ আত্মসাৎ, কেন্দ্রীয় বাসষ্ট্যান্ডের তহবিল আত্মসাৎ করার অভিযোগ উপস্থাপিত করা হয়।

পৌর সভার মেয়রের অপসারণের দাবি তুলে বক্তব্য রাখেন-পৌর প্যানেল মেয়র-১মোহাম্মদ আলী,প্যানেল মেয়র-২জহুরুল ইসলাম,৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কালা চান পাল,৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আফছার উদ্দিন,২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সোহেল রানা,১,২,৩ সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর চায়না আক্তার।এসময় পৌর সভার সকল সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ও ওয়ার্ড কাউন্সিলরগন উপস্থিত ছিলেন।

এ দিকে মেয়রের বিরুদ্ধে ১২ কাউন্সিলরের অনাস্থা সংবাদ সম্মেলন প্রস্তাবের প্রতিবাদে পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রুকুনুজ্জামান রোকনের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ মিথ্যা বানোয়াট ভিক্তিহীন ষড়যন্ত্রমূক বলে দাবি করে শুক্রবার বিকাল ৩ টায় তার বাসভবনে এক সাংবাদিক সম্মেলন করেন পৌর মেয়র।পৌর মেয়র সাংবাদিকদের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মনোনীত মেয়র দাবি করে বলেন,২৫ বছর পর পৌর সভার অভূত উন্নয়ন আমিই করেছি। পৌর সভার অর্থ আত্মসাৎ করিনি বরং পৌর সভার স্বার্থে কাজ করতে গিয়ে আমার পিতার রেখে যাওয়া ৪ বিঘা জমি বিক্রি করেছি। নির্বাচিত হওয়ার ২ বছর পর একটি চক্র আমার বিরুদ্ধে এমন একটি মিথ্যা অভিযোগ করে ৩ মাস পৌর সভায় যেতে দেয়নি ওই চক্রটি।ওই দায়ের করা অভিযোগের তদন্তে কোন প্রমাণ বা কোন ভিত্তি ছিল না। শেষ পর্যায়ে এসে ওই চক্রটি আবারো এ ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে।আমাকে মামলা দিয়ে তাড়াতে হবে না,বলে দিলেই চলে যাবো।আমি দলের নেতা বা আইনের কাছে নয়, এক আল্লাহর কাছে এর বিচার প্রার্থী হয়ে কান্না বিজড়িত কন্ঠে তার বক্তব্য সমাপ্ত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: