সরিষাবাড়ীতে বিধবার বসতভিটা দখলে প্রতিবাদকারী তিন যুবলীগ নেতাকে মাদক মামলায় জডিয়ে গ্রেফতার

তৌকির আহাম্মেদ হাসু সরিষাবাড়ী(জামালপুর) প্রতিনিধিঃ
জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে বিধবার বসতভিটা দখলে প্রতিবাদকারী তিন যুবলীগ সদস্যকে আটকের পর মাদক মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পরিবার পরিজনের পক্ষ থেকে উঠেছে। ঘটনাটি উপজেলার চাপারকোনা গ্রামে গত বুধবার (১৩ অক্টোবর) রাতে এ ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয় ও ভুক্তভোগী বিধবা সূত্রে জানা গেছে,সরিষাবাড়ী উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের চাপারকোনা গ্রামের গ্রাম পুলিশ সদস্য মৃত হীরা লাল রবি দাস তার জীবদ্দশায় স্ত্রী লচিয়া রবি দাসসহ ছেলে- মেয়ে নিয়ে ৫০ বছর অধিক সময় বসবাসরত বসতভিটাটি বুধবার (১৪ অক্টোবর) রাতে জবর দখল করেছেন একই গ্রামের একই বাড়ীতে বসবাসকারী শ্যামল রবিদাস,তার ছেলে সুমন রবি দাসসহ ভাড়াটিয়া লোকজন নিয়ে। আর এ ঘটনার প্রতিবাদ করতে গিয়ে ডোয়াইল ইউনিয়নের চাপারকোনা গ্রামের উপজেলা যুবলীগের সদস্য আব্দুল্লাহ আল মামুন (২৭),ডোয়াইল ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য সিদ্দিকুর রহমান(২৫) ও রোকন মিয়া(৩১)পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন বলে পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ তুলেছেন।

বিধবা লচিয়া রবি দাস অভিযোগ করে বলেন, অনেক দিন আগে আমার বসত ঘরটি সরিষাবাড়ী থানার পুলিশ এর সামনে আমার বসত ঘর ভেঙ্গে দিয়েছে শ্যামল রবিদাস ও তার ছেলে সুমন রবি দাস। ঘর ভাঙ্গার পর আমার বসত ঘরের স্থলে বুধবার (১৪ অক্টোবর) রাতে জবর দখল করে সেখানে রাতে ঘর উত্তোলন করে সুমন রবি দাসসহ ভাড়াটিয়া লোকজন।এ ঘর তোলার সময় সিদ্দিকুর রহমান(২৫),আব্দুল্লাহ আল মামুন (২৭) রোকন মিয়া(৩১) প্রতিবাদ করলে পুলিশ তাদেরকে ধরে থানায় নিয়ে যায়।

তিনি আরও জানান,আমার ঘরে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির একটি আবাসিক সংযোগ রয়েছে। যার বিদুৎ বিল প্রতি মাসে বাতি না জ্বালিয়েও বিল পরিশোধ করছি অনেক কষ্টে। আমার বসত ঘরটির জিনিসপত্র নষ্ট হচ্ছে। বিভিন্ন জনের কাছে ঘোরাঘুরি করেও কোন বিচার পাচ্ছি না। আমি অন্যর বাড়ীতে কষ্টে দিন-রাত যাপন করছি। আমার বসত ভিটা প্রশাসনের সাহায়্যে ফিরে পেতে চাই।
এ ব্যাপারে সুমন রবি দাস জানান,আমাদের জমিতে থাকতে দিয়েছিলাম বিধবা লচিয়া রবি দাস কে। আমাদের প্রয়োজনে আমরা আমাদের জমিতে থাকা ঘরটি পুলিশের সহযোগিতায় ঘরটি ভেঙ্গে দেওয়া হয়েছে।তিনি আরও জানান, লচিয়া রবি দাস আমাদের কাছে জমি পায় না।ওই জমিটি খাস জমি বলেও দাবি করেন সুমন রবি দাস।

সুমন রবি দাস এর ছোট বোন গীতা রবি দাস জানান,আমাদের জমিতে ঘর তোলার সময় আব্দুল্লাহ আল মামুনসহ কয়েকজন লোক আমাদের বাধা প্রদানসহ গালিগালাজ করে।এ বিষয়টি আমরা থানা পুলিশ কে অবগত করেছি এবং অভিযোগ দেওয়ায় পুলিশ তাদেরকে ধরে নিয়ে গেছে বলে জানান তিনি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে  যুবলীগ নেতার অভিবাভক জানান, আব্দুল্লাহ আল মামুন, সিদ্দিকুর রহমান, রোকন মিয়ার বিরুদ্ধে  ষড়যন্ত্রমূলক মামলা দেওয়া হয়েছে। আমরা এর বিচার চাই।

জানতে চাইলে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এ কে এম আশরাফুল ইসলাম জানান,যুবলীগ সদস্য আব্দুল্লাহ আল মামুন মাদক সেবন ও বিক্রি কোন দিনই করে নাই। বিধবার পক্ষ নেওয়ায় অপর পক্ষের লোকজন ষড়যন্ত্র করে পুলিশ দিয়ে আটকের পর মাদক মামলায় জডিয়ে দিয়েছে বলে জানতে পেরেছি।

এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানার এস আই আরিফুর রহমান অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন,আমি ও আমার সহযোগী এ এস আই শাহাদত হোসেন একটি মামলার তদন্তে গিয়েছিলাম পধিমধ্যে চাপারকোনা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ সংলগ্ন স্থানে আব্দুল্লাহ আল মামুন, সিদ্দিকুর রহমান, রোকন মিয়াকে সন্দেহ হলে তাদের নিকট ১৫০ গ্রাম গাঁজা পাওয়া যায়।পরে তিন জনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। তাদের সঙ্গে থাকা অপর এক সাথী দৌড়ে পালিয়ে যায়।আব্দুল্লাহ আল মামুন,সিদ্দিকুর রহমান,রোকন মিয়া’র বিরুদ্ধে সরিষাবাড়ী থানায় মাদক সেবন ও বিক্রি করার অপরাধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা রুজু করে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সোর্পদ করলে আদালত তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: