রংপুর ৩ আসনের উপনির্বাচনের দিন হিন্দু সম্প্রদায়ের সপ্তমীর দিন হওয়ায় নির্বাচনের দিন পরিবর্তনের দাবীতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি

মোঃ সাইফুল্লাহ , রংপুর সদর প্রতিনিধি >>

গতকাল ১৭-০৯-২০১৯ ইং বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ,রংপুর জেলা কমিটির ডাকে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে আসন্ন রংপুর ৩ আসনের উপনির্বাচনের দিন হিন্দু সম্প্রদায়ের সপ্তমীর দিন হওয়ায় নির্বাচনের দিন পরিবর্তনের দাবীতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মানবন্ধন ও আঞ্চলিক নির্বাচন কমিশন রংপুর এর মাধ্যমে প্রধান নির্বাচন কমিশন ও জেলা প্রশাসক মহোদয়ের মহোদয়ের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়!

সপ্তমীর দিন হওয়ায় নির্বাচনের দিন পরিবর্তনের দাবীতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি

মানব বন্ধন চলাকালীন সময়ে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পুজা উদযাপন পরিষদ রংপুর মহানগরের সভাপতি সুব্রত সরকার মুকুল । তিনি বলেন – ৫ অক্টোবর নির্বাচন বন্ধ না হলে আমি আহব্বান জানাব.. যেন সনাতন সম্প্রদায়ের কেউ নির্বাচনে অংশ গ্রহন না করে । পাশাপাশি ৫ দিন কালো পতাকা উত্তলিত থাকবে আর এ তারিখ পরিবর্তন করা না হলে সরকারকেই দায়ী করা হবে। নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের দাবীতে একত্রিত হয় হিন্দু-বৌদ্ধ -খ্রিষ্টান ছাত্র-যুব ঐক্য পরিষদ রংপুর জেলা ও মহানগর, সনাতন বিদ্যার্থী সংসদ-বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় রংপুর

হিন্দু সম্প্রদায়ের সপ্তমীর দিন উপ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে সম্ভাব্য সমস্যা ও ক্ষতির আশংকা সমূহঃ-

* নির্বাচনের আগে ৪৮ ঘন্টা ভারী যানবাহন বন্ধ রাখা হয়।যার প্রেক্ষিতে দূর দূরান্তের কুমারবাড়ী হতে মন্দির/ মন্ডপে প্রতিমা আনা সম্ভব হবে না।
* এই নির্বাচনী আসনে বিভিন্ন অস্থায়ী মন্দির নির্মান করে পূজা অর্চনা করা হয়।কিন্তুু সেই সময়ে ওই স্কুলে ভোটকেন্দ্র স্থাপন হলে পূজা করা সম্ভব হবে না।
* আইন শৃঙ্খলা বাহিনী,আনসার বাহিনী,যদি নির্বাচন নিয়ে ব্যাস্ত থাকেন,তবে শারদীয় দূর্গোৎসবে আইন শৃঙ্খলার অবনতি ঘটতে পারে।
* সনাতন সম্প্রদায়ের অনেক পুরুষ/মহিলা নির্বাচন গ্রহন প্রক্রিয়ায় সংশ্লিষ্ট থাকবেন,সেই সব পরিবারের বাকী সদস্যরা পূজার অানন্দ ও আয়োজন থেকে বঞ্চিত হবেন।
* ভোটগ্রহণের দিন সকল প্রকার যানবাহন বন্ধ থাকলে বৃদ্ধ নারী ও শিশুদের পূজা অর্চনার সময় যাতায়াতে সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে।
* নির্বাচনের সময় আইন শৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর লক্ষ্যে অসাধু ব্যাক্তিদের কাছে পূজা মন্দির/মন্ডপ টার্গেট হতে পারে বলে আমরা আশংকা করি।

  • ধর্ম যার যার,রাষ্ট্র সবার। নির্বাচন একটি উৎসব মূখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়।এতে রাষ্ট্রের সকল ধর্ম- বর্নের মানুষের নৈতিক অধিকার তার প্রতিনিধি নির্বাচনে অংশ নেয়া।কিন্তুু শারদীয় দুর্গোৎসবের মধ্যে ভোটগ্রহন অনুষ্ঠিত হলে সমাজের একটি বড় অংশ এই অধিকার থেকে বঞ্চিত হবে বলে আমরা মনে করি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: