রংপুরে চলমান বাণিজ্য মেলা বন্ধের দাবিতে এবার সংবাদ সম্মেলন

মো. সাইফুল্লাহ খাঁন জেলা প্রতিনিধি, রংপুর :          
পরীক্ষা চলাকালীন রংপুর পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজ সংলগ্ন মাঠে চলমান বাণিজ্য মেলা বন্ধের দাবিতে আজ ৬ ডিসেম্বর,২০১৯ সকাল ১১ টায় নগরীর নিউক্রস রোডস্থ সুমি কমিউনিটি সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন রংপুরের সচেতন অভিভাবক ও নাগরিকদের পক্ষে পলাশ কান্তি নাগ।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির রংপুর জেলা শাখার প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক বনমালী পাল, রংপুর সরকারি কলেজের দর্শন বিভাগের প্রাক্তন অধ্যাপক চিনু কবীর,নিপীড়ণ বিরোধী নারীমঞ্চের আহবায়ক নন্দিনী দাস,রংপুর পদাতিকের সাংগঠনিক সম্পাদক নাসির সুমন,শ্রমিক নেতা রেদওয়ান ফেরদৌস, শ্রমিক অধিকার আন্দোলনের নেতা সবুজ রায় প্রমুখ।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে পলাশ কান্তি নাগ বলেন, রংপুর পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজ সংলগ্ন মাঠে নারী পুলিশ কল্যাণ সমিতির সহযোগিতায় মন্তা ডেকোরেটর এন্ড ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট -এর আয়োজনে ১৪ নভেম্বর থেকে বাণিজ্য মেলা চলছে। মেলা চিরায়ত বাংলার ঐতিহ্য। আবহমান বাংলার ইতিহাস,ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির পরিপূরক মেলা অনুষ্ঠান অবশ্যই সাধুবাদ যোগ্য। নাগরিক জীবনের কর্ম ব্যস্ততার মাঝে চিত্ত বিনোদনের মত এ ধরণের আয়োজনের নিশ্চয়ই গুরুত্ব রয়েছে। যদিও কতিপয় মুনাফালোভী ব্যবসায়ীরা ব্যবসায়িক দৃষ্টিভঙ্গি থেকেই কর্পোরেট সংস্কৃতির আদলে মেলার আয়োজন করে। যা আমাদের সুষ্ঠু ধারার সংস্কৃতি ও বিনোদনের পথে মারাত্মক হুমকি স্বরূপ।
যাই হোক, এই মেলা অনুষ্ঠানের শুরু থেকেই আমরা পরীক্ষা চলাকালীন মেলা না করার জন্য দাবি জানিয়েছিলাম। সে লক্ষ্যে আমরা সর্বস্তরের নাগরিক ও অভিভাবকদের পক্ষ থেকে পুলিশ সুপার বরাবর স্মারকলিপি পেশ ও মানববন্ধন-সমাবেশ কর্মসূচি পালন করেছি। কিন্তু আমরা অবাক বিস্ময়ের সাথে লক্ষ্য করলাম সর্বমহলের প্রতিবাদকে অগ্রাহ্য করে পরীক্ষা চলাকালীন মেলা শুরু করা হলো। যে সময়ে এই মেলাটি শুরু করা হলো সে সময়টি মোটেও বিবেচনাপ্রসূত হয়নি। কারণ এই মেলার কারণে শুধু ভেন্যু হিসেবে পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীরাই ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে না বরং আশপাশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।
পুলিশ লাইন স্কুল এন্ড কলেজ এর আশপাশে নগরীর বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এরমধ্যে সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, রংপুর জিলা স্কুল, ভোকেশনাল স্কুল এন্ড কলেজ,রংপুর উচ্চ বিদ্যালয়,কৈলাশরন্জন উচ্চ বিদ্যালয়, শিশু নিকেতন,রংপুর সরকারি কলেজ উল্লেখযোগ্য। প্রতিটি স্কুলে এখনও সমাপনী পরীক্ষা চলছে। আগামী ১৭ অথবা ১৮  ডিসেম্বর পর্যন্ত এই পরীক্ষা চলবে । এ পরিস্থিতে  বাণিজ্য মেলা অনুষ্ঠানের কারণে সার্বিকভাবেই শিক্ষার্থীদের  পরীক্ষার প্রস্তুতির বিঘ্ন ঘটছে যা কোনভাবেই কাম্য নয়। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার বিঘ্ন ঘটিয়ে এ ধরণের আয়োজন কোন সচেতন নাগরিক কিংবা অভিভাবক মেনে নিতে পারছে না। এ সময়ে মেলা আয়োজন করার পূর্বে আয়োজক কর্তৃপক্ষের শিক্ষার্থীদের শিক্ষা জীবনের বিষয়টি গভীরভাবে বিবেচনা করে দেখা উচিত ছিল। কারণ এই মেলাটি শুধু নির্দিষ্ট গন্ডীর মধ্যেই সীমাবদ্ধ নেই , নগর জুড়েই এর প্রভাব রয়েছে। মেলার আকর্ষণে লেখাপড়া ছেড়ে অনেক কিশোর-কিশোরীরা এই মেলা প্রাঙ্গণে ভিড় করছে। ফলে এই সময়টি কোনভাবেই অনুকূল নয়। তাছাড়া বিদ্যালয়ের মাঠ ব্যবহার করে এ ধরণের মেলা আয়োজন না করার বিষয়েও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা রয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিষেধাজ্ঞাকে উপেক্ষা করে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার প্রস্তুতি হুমকির মধ্যে রেখে এই সময়ে মেলা চলমান থাকায়  আমরা অভিভাবক সমাজ উদ্বিগ্ন ও শংকিত।

আমরা যতদুর জানি এই মেলা আয়োজনের জন্য জেলা প্রশাসকের অনুমতিসহ যথাযথ বিধি-নিয়মও অনুসৃত হয়নি। শুধুমাত্র বাণিজ্যিক স্বার্থে হাজার হাজার শিক্ষার্থীর শিক্ষা জীবন বিপন্ন করে মেলা অনুষ্ঠানের বিষয়ে প্রচলিত নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে মেলাটি এখনো চলছে।
এমনি পরিস্থিতিতে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার স্বার্থে পুনাকের নামে চলামান বাণিজ্য মেলা বন্ধে আমরা সরকারের নিকট জোর দাবি জানাচ্ছি।
সংবাদ সম্মেলন থেকে অবিলম্বে পরীক্ষাকালীন সময়ে বাণিজ্য মেলা বন্ধ করা না হলে সকল শ্রেণী-পেশার নাগরিকদের নিয়ে কঠোর কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেয়া হয়।
উল্লেখ্য এ সংবাদ সম্মেলনে রংপুরে কর্মরত প্রায় সকল প্রেস ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: