মহেশপুরের দত্তনগর কৃষি খামারের ৩ কোটি টাকার ধান বীজ চুরির খবর এখন টক অব দি কান্ট্রি !

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি >>
ঝিনাইদহের মহশেপুর উপজেলার দত্তনগর কৃষি খামারের তিন উপ-পরিচালক বরখাস্ত হওয়ার খবরটি এখন টক অব দি কান্ট্রিতে পরিণত হয়েছে। ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে আলোচনা সমালোচনার ঝড় উঠেছে। বিশেষ করে ৩ কোটি টাকার ধান চুরির কান্ডটি সহজভাবে মেনে নিতে পারছে না নেটিজেনরা। ফলে ধান বীজ চুরির দায়ে তাদের চাকরীচ্যুত করার দাবীও তুলেছেন কেউ কেউ। ফেসবুকে অনেকেই মন্তব্য করেছেন, দত্তনগরের যুগ্মপরিচালকসহ ৫টি খামারের উপ-পরিচালকগন ধানচুরির পাশাপাশি শ্রমিকের টাকা ও ডিজেল কেনায় দুর্নীতি করেন। বিশেষ করে ভুয়া শ্রমিকের উপস্থিতি দেখিয়ে টাকা আত্মসাৎ করে থাকেন। এতে সরকারের কোটি কোটি টাকা লোপাট হচ্ছে দত্তনগর কৃষি খামার থেকে। এদিকে বরখাস্তকৃত তিন উপ-পরিচালক গোকুলনগর ইউনিটের তপন কুমার সাহা, করিঞ্চা খামারের উপ-পরিচালক ইন্দ্রজিৎ চন্দ্র শীল ও পাথিলা কৃষি খামারের উপ-পরিচালক আক্তারুজ্জামান তালুকদারের নামে বেনামে যে সম্পদের পাহাড় গড়ে তুলেছেন তা তদন্তের দাবী করেছেন এলাকার মানুষ।

উল্লেখ্য, অসৎ উদ্দেশ্য ও বিধি বর্হিভুতভাবে প্রায় ৩ কোটি টাকা মূল্যের ১২৯ মেট্রিক টন ধান বীজ ঝিনাইদহের মহশেপুর উপজেলার দত্তনগর কৃষি খামার থেকে চুরি করে পাচারের অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় দত্তনগর কৃষি খামারের ৩ উপ-পরিচালককে শাস্তিমূলক বদলীসহ সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। একই সাথে যশোর বীজ পক্রিয়াজাত কেন্দ্রের উপ-পরিচালক মোঃ আমিন উল্যাকেও বরখাস্ত করে চিঠি দেওয়া হয়েছে। বিএডিসির সচিব আব্দুল লতিফ মোল্লা সাক্ষরিত এক চিঠিতে এই আদেশ দেন। সচিব আব্দুল লতিফ মোল্লা সাক্ষরিত বরখাস্ত কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো পৃথক পৃথক (১২.০৬.০০০০.২০৩.২৭.২৮৩.১৯.৭২১/৭২২/৭২৩ ও ৭২৪) স্মারকের চিঠিতে বলা হয়েছে বিধি বহির্ভূতভাবে অসৎ উদ্দেশ্যে স্বীয় স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার গোকুল নগর, পাথিলা ও করিঞ্চা বীজ উৎপাদন খামারে ২০১৮/১৯ উৎপাদন বর্ষে কর্মসুচি বহির্ভুত অতিরিক্ত ১২৯.২২ মেট্রিক টন এসএল-৮এইচ হাইব্রীড জাতের ধান বীজ প্রক্রিয়জাত কেন্দ্র যশোরে প্রেরণ করেন। অতিরিক্ত বীজ উৎপাদনের পরিমান নিয়মানুযায়ী মজুদ ও কাল্টিভেশন রেজিষ্ট্রারে লিপিবদ্ধ করার কথা। এমন কি অতিরিক্ত কোন বীজ প্রেরণের কোন চালান বা তথ্য প্রমাণ খামারে রাখেন নি। এহেন কার্যকলাপ বিএডিসি কর্মচারী চাকরী প্রবিধানমালা ১৯৯০ এর ৩৯ (ক)(খ)(চ) দায়িত্ব পালনে অবহেলা, অসদাচারণ, চুরি, আত্মসাৎ, তহবিল তছরুপ ও প্রতারণার শামিল। ফলে আপনি বা আপনাকে ১৯৯০ এর ৪৫ (১) বিধি মোতাবেক সংস্থার চাকরী থেকে সাময়িক বরখাস্ত করে অতিরিক্ত মহা ব্যবস্থাপক (খামার) বিএডিসি, ঢাকা দপ্তরে সংযুক্ত করা হলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: