দক্ষিণ আফ্রিকাকে বিদায় করে বিশ্বকাপে টিকে রইল পাকিস্তান

এ বিশ্বকাপে নিজেদের নামের পাশ থেকে ‘চোকার’ ট্যাগ সরানোর ইচ্ছা জানিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। বিশ্বকাপে বারবার নক আউট পর্ব থেকে বাদ পড়ার কারণে লেগে যাওয়া ট্যাগ সরাতে অবশ্য ভিন্ন পন্থাই নিয়েছে দলটি। এবার আর নক আউটে ওঠার ঝামেলাতেই যায়নি। বিশ্বকাপে এখনো পর্যন্ত একমাত্র আফগানিস্তানকে হারিয়েছে তারা। আফগানিস্তানের পর দ্বিতীয় দল হিসেবে বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়েছে তারা। ৯ উইকেটে ২৪৯ রানে থেমে পাকিস্তানের কাছে ৪৯ রানে হেরে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

পরাজয়ের ব্যবধানটা দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচ জুড়ে দেখানো অসহায়ত্ব বোঝাতে পারছে না। ৩০৯ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে কখনোই স্বস্তিতে ছিল না তারা। শেষ ১০ ওভারে ৫ উইকেটে ১২০ রান করার লক্ষ্য পেয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। উইকেটে ডেভিড মিলার (৩১) ও আন্দিলে ফিকোয়াও (৪৬*) ছিলেন। এর পরে নামবেন ক্রিস মরিস। বিশ্বজুড়ে টি-টোয়েন্টিতে ত্রাস সৃষ্টি করা এ নামগুলোর কারণেই ধারাভাষ্যকক্ষে থাকা সাবেক ক্রিকেটার দক্ষিণ আফ্রিকাকে উড়িয়ে দিতে চাইলেন না। কিন্তু ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগের ‘রথি-মহারথী’রা যে বিশ্বকাপ এলেই কাবু হয়ে পড়েন। ৪১তম ওভারের চতুর্থ বলেই বিদায় নিলেন মিলার। তাঁকে অনুসরণ করতে মরিসও খুব বেশি সময় নেননি।

পাকিস্তানের গল্পটা উল্টো। বিশ্বকাপ দলে প্রথমে সুযোগ পাননি ওয়াহাব রিয়াজ ও মোহাম্মদ আমির। বিশ্বকাপের আগে গত দুই বছরে যে ভয়ংকর বাজে খেলছিলেন তারা। কিন্তু বিশ্বকাপে ঠিকই তাদের নিয়ে এল পাকিস্তান। এ দুই বাঁহাতি পেসার কী দুর্দান্তভাবেই না তার প্রতিদান দিচ্ছেন। প্রতি ম্যাচেই প্রথম স্পেলে মোহাম্মদ আমির উইকেট তুলে নিচ্ছেন। আজ তো নিয়েছেন প্রথম বলেই, দুর্দান্ত সুইংয়ে হাশিম আমলাকে কোনঠাসা করে। পরের স্পেলে ভয়ংকর হয়ে ওঠার হুমকি দেওয়া ফাফ ডু প্লেসিকেও (৬৩) ফিরিয়েছেন বাড়তি বাউন্সে।

ওয়াহাব রিয়াজকে স্লগ ওভারের জন্য নেওয়া হয়েছে সেটা প্রধান নির্বাচকই বলেছেন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষেই সেটা দেখিয়েছেন। আজও দেখালেন। ৯০ মাইল ছোঁয়া গতিতে রিভার্স সুইং দক্ষিণ আফ্রিকার টেল এন্ডারদের জন্য দুঃস্বপ্ন হয়ে দেখা দিয়েছিল। এর মাঝে ক্রিস মরিসকে আউট করার বলটি নিয়ে তো রীতিমতো উচ্ছ্বাস দেখিয়েছেন ধারাভাষ্যে দায়িত্বের থাকা ওয়াসিম আকরাম।

শুধু ওয়াহাব-আমিরই নয়। আজ পাকিস্তানের সব বোলারই নিজেদের দায়িত্ব পালন করেছেন। গুরুত্বপূর্ণ সময়ে তিন উইকেট নিয়েছেন শাদাব খান। ইমাদ ওয়াসিমের নিয়ন্ত্রিত বোলিং চাপে রেখেছে প্রোটিয়াদের। সাবেক খেলোয়াড়দের প্রশ্নের মুখে পড়া শাহিন আফ্রিদিও মিলারের উইকেট নিয়েছেন স্লগ ওভারের শুরুতে।

এ ম্যাচে হেরে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ওঠার গাণিতিক সম্ভাবনাও শেষ প্রোটিয়াদের। আর ৬ ম্যাচে ৫ পয়েন্ট পেয়ে বাংলাদেশের পরেই আছে পাকিস্তান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: