ঢাকা- ১৪ আসনের উপনির্বাচনে এগিয়ে যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিল

 

মোঃ পারভেজ আলম, জেলা প্রতিনিধি, ঢাকা>>

জাতীয় সংসদের শূন্য হওয়া ঢাকা-১৪ আসনের জন্য মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল। ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন তিনি। এসময় তিনি বলেন, দল থেকে চূড়ান্ত মনোনয়ন পেলে ঢাকা-১৪ আসনকে সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত হিসেবে গড়ে তুলবেন। তবে দল যে প্রার্থীকে মনোনয়ন দেবে তার পক্ষে কাজ করবে স্থানীয় আওয়ামী লীগ। তবে স্থানীয় নেতাকর্মীদের বেশির ভাগই যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিলকে ঢাকা-১৪ আসনের নৌকার মাঝি হিসেবে দেখতে চেয়ে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে। নেতাকর্মীদের অনুরোধে তিনি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন বলে জানান।

বিভিন্ন সূত্র মতে, আসনটি হতে সাংসদ হওয়ার দৌড়ে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল। প্রায় ৩০ বছর ধরে মিরপুরের রাজনীতিতে এ যুবনেতার সক্রিয় ভূমিকা রয়েছে। বিশেষ করে-গোটা মিরপুর অঞ্চলের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী (মসজিদের ইমাম, হিজড়া, শ্রমিক শ্রেণি, প্রতিবন্ধি, অন্ধ) মাঝে তিনি অনেক জনপ্রিয়। মানবিক কর্মকাণ্ডের কারণে স্থানীয়রা তাকে আপন করে নিয়েছেন। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, শ্রমিকলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগের অধিকাংশ নেতাকর্মীরাকে যুবলীগের সাধারণ সম্পাদককে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে পেতে চান। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ গোটা নির্বাচনি এলাকায় তাকে নিয়ে ব্যাপক আলোচনা চলছে।

তবে প্রার্থীতা নিয়ে জানতে চাইলে যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল বলেন, নেতাকর্মীরা চাইতে পারেন, আমার এ বিষয়ে এখনো কথা বলার সময় আসেনি। আমাদের অভিভাবক রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনা যে নির্দেশনা দিবেন, সে অনুযায়ী কাজ করবো। বর্তমানে বিশ্বব্যাপী মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে তিনি মানুষের দুয়ারে দুয়ারে গিয়ে খোঁজ খবর নিতেন এবং নিজ তহবিল থেকেও মানুষকে যথেষ্ট সহযোগিতা করেছেন। বাংলাদেশে ভাইরাসটি প্রার্দুভাব শুরুর পর হতেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানবিক নেতা হিসেবে মাঠে রয়েছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা আসার পর যুবলীগের প্রতিটি মানবিক কর্মকান্ড বাস্তবায়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছেন এ যুব নেতা।

উল্লেখ্য, যখনই যুবলীগ নিয়ে মানুষের মনে ও বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের নেতিবাচক শিরোনাম হচ্ছিলো তখনই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার বিশ্বস্ত আস্থাভাজন জনগণের সেবক হিসেবে পরিচিত মাইনুল হোসেন খান নিখিলকে যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে নিযুক্ত করেন।

স্থানীয়দের সাথে আলাপকালে জানা যায়, মাইনুল হোসেন খান নিখিল আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে পরীক্ষিত ও ত্যাগী নেতা। প্রায় ৪০ বছরেরও অধিক সময় ধরে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার বিশ্বস্ত-আস্থাভাজন এবং কর্মী হিসেবে নিজেকে মেলে ধরেছেন। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের দু:সময়ে, স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলন, বিএনপি-জামায়াত সরকারের জ্বালাও পোড়ানো আন্দোলনে, এক-এগোরাসহ দেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের সোচ্চার হয়ে মাঠ -ময়দান কাঁপিয়েছিলেন। তিনি বিএনপি জামাত জোট সরকারের আমলে বহুবার কারা নির্যাতনের শিকার হন। এখনো পুরো শরীরের আঘাতের চিহৃ নিয়ে রাজনীতির মাঠে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন। নিজেকে জনসাধারণের কাছে সততার মূর্ত প্রতীক ও ধার্মিক ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত করে তুলেছেন। মানুষের সাথে তার সৌহাদ্যপূর্ণ ব্যবহারের কথা সবারই জানা।

স্থানীয়রা জানায়, কল্যাণমূলক রাজনীতিতে নিখিল সবার চেয়ে এগিয়ে আছেন। তিনি সব সবময় অসহায় মানুষের পাশে থাকেন, যে কোনো প্রয়োজনে তাকে পাওয়া যায়। তিনি এমপি হলে গাবতলী ও মিরপুরের মানুষ আরো ভালো থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: