টিকার বিরুদ্ধে বিএনপির অপপ্রচারে জনগণের সায় নাইঃ তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ

 

মোঃ পারভেজ আলম, জেলা প্রতিনিধি, ঢাকাঃ তথ্যমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, জনগণের উৎসাহে করোনা টিকার বিরুদ্ধে বিএনপির অপপ্রচারে ভাটা পড়েছে। আজ বিএনপি জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে। আজ ১ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ আয়োজিত ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে আমাদের অর্জন ও বর্তমান প্রজন্মের ভবিষ্যৎ করণীয়’ শীর্ষক আলোচনায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় হাছান মাহমুদ এসব কথা বলেন। প্রজন্ম লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মো. আসাদুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খান। বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা বলরাম পোদ্দার।

অনুষ্ঠানে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘করোনা মহামারির শুরুতে অনেকে আতঙ্কে ছিল, এমনকি কেউ কেউ প্রার্থনাও করেছিল যে বাংলাদেশে হাজার হাজার মানুষ না খেয়ে মৃত্যুবরণ করবে এবং রাস্তায় লাশ পড়ে থাকবে। সৃষ্টিকর্তার কৃপায়, জননেত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারণে দেশে একজন মানুষও অনাহারে থাকেনি, রাস্তায় লাশ পড়ে থাকেনি। এরপর তারা আশা করেছিল, করোনার টিকা সঠিক সময়ে আনতে বা সংগ্রহ করতে পারবে না। সরকার তার ঘোষণা অনুসারে জানুয়ারি মাসের মধ্যেই ৭০ লাখ ডোজ করোনা টিকা দেশে এনেছে। এতে তাদের সেই আশার গুড়ে বালি।’

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘অপপ্রচারকারীরা এরপর বলল যে, এই টিকা কাজ করবে না, আর এই টিকা আগে সরকারের মন্ত্রী-আমলাদের নিতে হবে। এখন সরকারের মন্ত্রী-আমলারা আগে করোনা টিকা নিয়েছেন। ফলে তাদের মুখটা চুপসে গেছে। যদিও-বা এমপি, মন্ত্রী ও সরকারের উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তারা আগে নিতে চায়নি, কিন্তু মানুষকে পথ দেখানোর জন্যই অনেকে নিয়েছেন, তাঁদের আমি ধন্যবাদ জানাই।’ ‘সবাই বিপুল উৎসাহে টিকা নেওয়া শুরু করেছেন—এখন বিএনপি কী বলবে, শেষ পর্যন্ত তারা এই টিকা নেবে কি নেবে না, নাকি পাকিস্তান কখন টিকা আবিষ্কার করবে, সেটার জন্য বসে আছে—এটিই হচ্ছে বড় প্রশ্ন।

তিনি বলেন, ‘আমি বিএনপি নেতাদের অনুরোধ জানাব, এ ধরনের সমালোচনা বাদ দিয়ে আপনারা সরকার যে টিকার বিষয়ে সাফল্য দেখিয়েছে, দয়া করে তার প্রশংসা করুন।’

সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে বিএনপির নানা অভিযোগের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘চট্টগ্রামে ৫২ জন কাউন্সিলরের মধ্যে ১টি কাউন্সিলরও তারা পায়নি। এটি তাদের সাংগঠনিক দুর্বলতা এবং একই সঙ্গে তারা যে জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে, সেটির বাস্তবতা। এই বাস্তবতা যখন তারা মানবে না, তখন তাদের পক্ষে ভোটে দাঁড়ানো বা জেতা সম্ভবপর হবে না। আমি বিএনপি নেতাদের অনুরোধ জানাব সরকারের সমালোচনা না করে আপনারা এই করোনাকালে জনগণের পাশে দাঁড়ান। আসুন সবাই মিলে একযোগে মানুষের পাশে দাঁড়াই। রাজনীতি মানুষের জন্য, রাজনীতি দেশের জন্য, রাজনীতি দলের জন্য নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: