ঝিনাইদহে সেই কুমারী মা ও তার শিশু সন্তানকে দেখতে যান পুলিশ সুপার

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি :
ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান এক কুমারী মা ও তার শিশু সন্তানের দেখভালের দায়িত্ব নিয়েছেন। তার হস্তক্ষেপে প্রতারক প্রেমিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঝিনাইদহ সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে বুধবার রাতে মামলা দায়ের করেছেন। এরপর অভিযুক্ত নাইমকে গ্রেপ্তার করা হয়। মামলার এজাহারে জানানো হয়, সাধুহাটি ইউনিয়নের পোতাহাটি নতুন পাড়া গ্রামের আনোয়ার হোসেনের কিশোর ছেলে নাইম একই এলাকার ৭ম শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তোলে। তারা মেলামেশার এক পর্যায়ে কিশোরী গর্ভবতী হয়ে পড়ে। এরই মধ্যে ১১ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় রাহেলা জেনারেল হাসপাতালে কিশোরীর পুত্রসন্তান ভূমিষ্ঠ হয়। তখন নাইম ওই সন্তানের পিতৃত্ব অস্বীকার করে। ওই কিশোরী সন্তান নিয়ে অসহায় হয়ে পড়ে। বিচারের জন্য থানা পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাছে ধরনা দেয়। এর মধ্যে পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান জানতে পেরে তিনি দ্রুত ওই কিশোরীর বাড়িতে যান, খোঁজ খবর নেন এবং এই প্রতিবেদকের বলেন যতদিন এর সুরাহা না হয়, ততদিন ওই কিশোরী এবং তার সন্তানের ভরণ-পোষণের দায়িত্ব তিনি নিয়েছেন। শিশুটি কোনো অপরাধ করেনি। তিনি বলেন, ডিএনএ পরীক্ষার পর প্রমাণ হবে শিশুটির বাবা কে? আদালত এই বিষয়ে ব্যবস্থা নেবেন।

নাইমের বাবা আনোয়ার হোসেন বলেন, তার ছেলে নির্দোষ। তাকে ফাঁসানের জন্য মামলা হয়েছে। তবে ডিএনএ পরীক্ষায় নাইম শিশুর বাবা প্রমাণ হলে তিনি তা মেনে নেবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: