জনবল সং কটে হোমনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেপ্লেক্স , চরম ভোগান্তিতে রোগিরা

মো. ইব্রাহিম খলিল, হোমনা, কুমিল্লা :
কুমিল্লার হোমনা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চরম জনবল সংকটে রয়েছে। হাসপাতালটি বারো বছর আগে ৫০ শয্যায় উন্নীত হলেও জনবল কাঠামো উন্নীত হয়নি। শিশু বিশেষজ্ঞ, অ্যানেসথেসিস্ট, কার্ডিওলোজিস্ট, অর্থোপেডিক্স, চর্ম ও যৌনরোগ বিশেষজ্ঞ, বিডিএস, সহকারী সার্জন, মেডিকেল টেকনোলজিস্ট (রেডিও গ্রাফার), প্যাথলজিস্টসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদ শূন্য রয়েছে। গাইনী কনসালটেন্ট থাকলেও, সপ্তাহ্ মাত্র ২ দিন আসায় মহিলা রোগীরা ঠিকমতো সেবা পাচ্ছে না। গাইনী কনসালটেন্ট ডা. সায়মা আহমেদ সপ্তাহ্ ২ দিন এসেও নির্দিষ্ট কোনো কক্ষে না বসাতে এবং অফিস টাইম পর্যন্ত না থাকাতে চিকিৎসা নিতে আসায় মহিলা রোগীরা হয়রানির শিকার হচ্ছে। ৩১ চিকিৎসকের বিপরীতে ১০ জন থাকায় হাসপাতালের স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত সাধারণ মানুষ। এ ছাড়া হাসপাতালের ২য়, ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির জনবলের অবস্থা আরোও করুণ।

জানা গেছে, এ উপজেলায় একটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, দু’টি উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র, ৮ টি ইউনিয়ন ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র ও ২০ টি কমিউনিটি ক্লিনিক রয়েছে। ২০০৭ সালে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীত হলেও জনবল কাঠামোর বেশিরভাগ পদই রয়েছে শূন্য। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ৫০ শয্যায় উন্নীত হলেও ৩১ শয্যার জন্য যে চিকিৎসক ও জনবল প্রয়োজন তার চেয়েও অনেক কম রয়েছে। ৩১ শয্যার জন্য ২১ জন চিকিৎসক থাকার কথা থাকলেও চিকিৎসক রয়েছে মাত্র ১০ জন। তিনজন মিডওয়াইফসহ (ধাত্রী) ২১ নার্সের বিপরীতে ১৯ জন থাকলেও তৃতীয় শ্রেণির ৮৩ জনের বিপরীতে ৪৩ জন এবং চতুর্থ শ্রেণির ২৫ জনের বিপরীতে রয়েছে ১৩ জন। এছাড়া এক্স-রে মেশিনটি দীর্ঘদিন ধরে অকেজো হয়ে পড়ে থাকায় হাসপাতালে আসা রোগীরা বেশি দামে বাহিরের ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে এক্স-রে করতে হয়। অতি দ্রুত কাঙিক্ষত চিকিৎসকসহ জনবল নিয়োগ দিয়ে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণে সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন হোমনাবাসী।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. শহীদ উল্লাহ্ বলেন, চিকিৎসক প্রয়োজনের চেয়ে কম থাকায় রোগীগের চিকিৎসাসবা দিতে আমাদের বেগ পেতে হচ্ছে এবং বাড়তি সময় দিতে হচ্ছে। আশা করি, উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ চিকিৎসকসহ জনবল সংকট সমাধানে নজর দিবেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবদুছ ছালাম সিকদার চিকিৎসকসহ জনবল সংকটের কথা স্বীকার করে বলেন, আশা করি, ৩৯ তম বিসিএস ক্যাডারে (স্বাস্থ্য) নিয়োগপ্রাপ্তদের মধ্যে থেকে পদায়ন দিলে সংকট কেটে যাবে এবং গাইনী কনসালটেন্ট এর বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, গাইনী কনসালটেন্ট ডা. সায়মা আহমেদ সপ্তাহ্ ২ দিন আসায় মহিলা রোগীরা চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

কুমিল্লা জেলার সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান বলেন, সারাদেশেই ডাক্তারের সংকট রয়েছে, হোমনাও এর ব্যতিক্রম নয়। শূন্য থাকায় কনসালটেন্টদের বিষয়ে মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়েছে এবং ৩৯ তম বিসিএস ক্যাডারে নিয়োগপ্রাপ্তদের পদায়ন করা হলে দ্রুততম সময়ের মধ্যে হোমনাে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকসহ জনবল সংকট দূর হয়ে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: