গাইবান্ধায় ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত শিশু সোলাইমানকে বাঁচাতে মানবিক আর্থিক সাহায্যের আবেদন

শেখ মোঃ সাইফুল ইসলাম, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি : হতদরিদ্র রিক্সাচালক সোহেল মিয়াv দাম্পত্য জীবনে প্রথম মেয়ে সুমাইয়ার (৭) জন্ম হয়। এর দু’বছর পর জন্ম হয় যমজ ছেলে- মেয়ে, যমজ দু’ভাই-বোনের মধ্যে ৫ বছর বয়সী ছেলে ব্রেইনটিউমারে আক্রান্ত মুমূর্ষু সোলাইমানকে বাচাঁতে মানবিক আর্থিক সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন শিশুটির পরিবার। পলাশবাড়ী পৌরশহরের জামালপুর গ্রামের হতদরিদ্র রিক্সাচালক সোহেল মিয়া-মেরিনা বেগম দাম্পত্য জীবনে প্রথমত: এক মেয়ের পর ওই দম্পতি মেয়ে এবং এক ছেলেসহ যমজ সন্তানের জন্ম দেন। এরপর হতে শ্রমজীবী সোহেল-মেরিনা দম্পতির সংসার জীবন বেশ ভালই কাটছিল। ছোট্ট শিশু মেয়ে সুরাইয়া শারীরিক সুস্থ থাকলেও সাড়ে ৩ বছর বয়সে ব্রেইনটিউমারে আক্রান্ত হয়ে পড়েন ছেলে সোলাইমান আলী (৫)। কিন্তু অভাবের সংসারে অর্থাভাবে সঠিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে না পারায় প্রায় দেড় বছর পেরিয়ে যাবার একপর্যায় ব্রেইনটিউমার আক্রান্ত হবার বিষয়টি ধরা পড়ে। নিত্যদিনের অভাব-অনটনের সংসারে ছেলের ব্যয়বহুল চিকিৎসায় সঞ্চয় যা ছিল তা ইতোমধ্যেই শেষ । এক চিমটে ভিটেমাটি আর শেষ সম্বল ওই রিক্সাটি ছাড়া পরিবারটির সঞ্চয় বলতে আর কিছুই নেই। তার ওপর করোনার চলমান ক্রান্তিকালে রিক্সা চালাতে না পেরে পরিবারটির দু’বেলা দুমুঠো অন্নের সংস্থান যেখানে নেই , সেখানে আদরের সন্তান সোলাইমানের চিকিৎসা দুরূহ হয়ে পড়েছে। ছোট্ট শিশু সোলাইমান গত আড়াই মাস ধরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. তোফায়েল এবং ডা.রাজকুমারের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন রয়েছে। প্রয়োজনীয় অর্থাভাবে তার অপারেশন না করতে পারায় ক্রমান্বয়ে মৃত্যুর দিকে ধাবিত হচ্ছে শিশু সোলাইমান । ইতোমধ্যেই লক্ষাধিক টাকা ব্যয় হয়েছেন শিশুটির পরিবারের । আরো প্রায় দুই লক্ষাধিক টাকার প্রয়োজন বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন শিশুটির পরিবারকে । কিন্তু কোনোভাবেই উক্ত টাকা সংগ্রহের কোন পথ নেই পরিবারটির কাছে । অসহায় পরিবারটি জরুরি অপারেশন করতে নিরূপায় হয়ে, অর্থ সহায়তা চেয়ে সমাজের দানশীল ব্যক্তিত্ব, জনপ্রতিনিধি, সমাজের বিত্তশালী- ব্যক্তিবর্গ, ব্যবসায়ী, রাজনীতিক, ব্যাংক-বীমা, সরকারি ও বেসরকারি সংস্থাসহ, এলাকার স্থানীয় জাতীয় সংসদ সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং সর্বোপরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা কামনা করেছেন অসহায় পরিবারটি । প্রথমতঃ কেবল মহান স্রষ্টার করুণা এবং বিত্তশালীদের মানবিক অর্থ সহায়তাই পারে সোলাইমানের জীবন বাঁচাতে। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা: মো: সোলাইমান আলী, প্রযত্নে পিতা:মো:সোহেল মিয়া, মোবাইল নম্বর: 01314- 175-018 বিকাশ একাউন্ট নম্বর: 01314-175-018।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: