কুষ্টিয়ায় সড়কের মাঝে ৪২ খুঁটি

রফিকুল ইসলাম, কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ায় সড়কের মাঝে ৪২ খুঁটি অবস্থিত। কুষ্টিয়া শহরের একমাত্র প্রধান সড়ক এন.এস রোড । অধিকাংশ ব্যবসা-বাণিজ্য গড়ে ওঠেছে এ সড়কেই। প্রায় সোয়া দুই কিলোমিটারের এ সড়কের ওপর দাঁড়িয়ে আছে ৪২টি বৈদ্যুতিক খুঁটি। সামান্য দূরত্বের ব্যবধানে সে সব খুঁটির অবস্থান। কিছু কিছু খুঁটি আবার সড়কের প্রায় মাঝখানে পড়ে গেছে। এতে করে থাকছে দুর্ঘটনার ঝুঁকি।

ফলে সড়ক প্রশস্ত হলেও সুফল পাচ্ছেন না কুষ্টিয়া পৌরসভার জনগণ। পৌর কর্তৃপক্ষ বলছেন, খুঁটি সরানোর ব্যাপারে বিদ্যুৎ বিভাগকে একাধিকবার চিঠি দিলেও কাজের কোনো অগ্রগতি নেই। তবে বিদ্যুৎ বিভাগের দাবি, পৌরসভা প্রথম পর্যায়ে শতাধিক খুঁটি সরোনোর জন্য চিঠি দিয়েছিল। পরে তারা সেটা কমিয়ে ৫০-এর নিচে নেমে এসেছে।

পৌরসভা সূত্র জানায়, কুষ্টিয়া শহরের মজমপুর থেকে বড় বাজার পর্যন্ত এনএস রোডের প্রায় সোয়া দুই কিলোমিটার পানি নিষ্কাশনের জন্য প্রধান নালা নির্মাণ করা হয়েছে। একই সঙ্গে নালা নির্মাণের ফলে সড়কও প্রশস্ত হয়েছে। সড়কের উভয় পাশে অন্তত আট ফিট করে সড়ক প্রশস্ত হয়েছে। ২০১৮ সালের প্রথম দিকে ‘নেশন টেক’ নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ শুরু করে। চলতি বছরের মার্চ মাসে কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও কাজ এখনও চলছে। বর্ধিত অংশে সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে। এরপর পুরো সড়ক সংস্কার করার কথা। সড়কের প্রশস্থকরণ কাজ শেষ পর্যায়ে। শুধু পিচ করানো বাকি আছে। তবে বর্ষার কারণে পিচের কাজ করতে দেরি হচ্ছে।

এদিকে সড়ক প্রশস্ত হলেও কাজে আসছে না সড়কের মাঝেখানে অনেকগুলো বিদ্যুতের খুঁটি থাকায়। বিভিন্ন সময়ে ওই সড়কে চলতে গিয়ে যানজট বেঁধে যাচ্ছে। এমনকি খুঁটিতে ধাক্কা লেগে ছোট দুর্ঘটনাও ঘটছে। সড়ক নির্মাণ কাজে নিয়োজিত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা বলছেন, সড়ক নির্মাণের পর খুঁটি সরালে সড়ক ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

পৌরসভা সূত্র জানায়, গেল বছর সড়কের কাজ শুরুর সময় সার্ভে করে দেখা যায় ওজোপাডিকোর অন্তত ১২২টি বিদ্যুতের খুঁটি সরানো লাগবে। এ জন্য পৌরসভার পক্ষ থেকে ওজোপাডিকোকে চিঠি দেওয়া হয়েছিল। সেই চিঠিতে খুঁটি সরানোর বিষয়েও অর্থ ব্যয়ের প্রাক্কলন চাওয়া হয়। তারা দেড় কোটি টাকা খরচের বিবরণ দেয়। এত টাকা বরাদ্দ না থাকায় খুঁটির সংখ্যা কমিয়ে আনা হয়। সর্বশেষ ৪২টি খুঁটি সরানোর জন্য আবারও চিঠি দেওয়া হয়।

সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, দ্রুত গতিতে সড়ক প্রশস্কতরণের কাজ এগিয়ে চলেছে। এতে করে বেশিরভাগ জায়গায় সড়কের মাঝে বিদ্যুতের খুঁটি দাঁড়িয়ে রয়েছে। সড়কের দুইধারে প্রায় আট ফিট করে প্রশস্ত হলেও এর কোনো সুফল মিলছে না। খুঁটিগুলোর কারণে আগের মতোই যানজট লেগে আছে। মজমপুর থেকে বড় বাজার পর্যন্ত একটু পরপরই সড়কের মাঝখানে খুঁটি দাঁড়িয়ে আছে। সবচেয়ে মারাত্মক ঝুঁকিতে আছে বক চত্বর থেকে একতারা মোড় পর্যন্ত।

এ সড়ক দিয়ে নিয়মিত চলাচলকারী সেলিম রেজা বলেন, সড়ক প্রশস্ত হচ্ছে দেখে ভালো লাগে। বৈদ্যুতিক খুঁটি আগের জায়গায় রয়ে গেছে। এখন যানজটের সঙ্গে তৈরি হয়েছে দুর্ঘটনার ঝুঁকি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: