কুষ্টিয়ায় যৌতুকের দাবীতে গৃহবধূকে নির্যাতনের অভিযোগ

 উপজেলা  প্রতিনিধি (কুষ্টিয়া)>> 

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাটশ হরিপুর গ্রামে যৌতুকের দাবীতে স্বামী ও তার পরিবারের  সদস্যদের অমানুষিক নির্যাতনের শিকার হয়ে এক গৃহবধূ মিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর ভাই তরিকুল ইসলাম বাদী হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। 

সূত্র জানায়, ছয় বছর পূর্বে কুষ্টিয়ার মিরপুর পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ড তালতলা মহল্লার মৃত মীর মোহাম্মদ উল্লাহর মেয়ে টুম্পা খাতুনের (২৫) সাথে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাটশ হরিপুর গ্রামের মৃত মকলেস মন্ডলের ছেলে জহুরুল ইসলামের (৪০) পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। জহুরুলের পূর্বে ২ জন স্ত্রী থাকা সত্বেও তা গোপন করে সে টুম্পাকে বিয়ে করে। পূর্বের স্ত্রীরাও তার নির্যাতন সইতে না পেয়ে চলে যায় বলে জানা গেছে। বিয়ের সময় মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে টুম্পার পরিবার ১ লক্ষ টাকা যৌতুক প্রদান করেন। পরে জহুরুল সিঙ্গাপুরে চলে যান। সিঙ্গাপুর থাকাকালীন সে তার তালাকপ্রাপ্তা প্রথম স্ত্রী জুবাইদা নাহার এ্যানি’র সাথে গোপনে যোগাযোগ রাখতে শুরু করে।এক বছর পূর্বে জহুরুল দেশে ফিরে আসলে প্রথম স্ত্রীর সাথে তার গোপনে যোগাযোগের বিষয়টি প্রকাশ পায়। এ নিয়ে তাদের সংসারে মাঝে মধ্যে অশান্তি শুরু হয় বলে টুম্পা অভিযোগ করেন। পুনারায় জহুরুল সিঙ্গাপুরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলে টুম্পা পরিবারের নিকট আবারো ১ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবী করেন। টুম্পার পিতা জীবিত না থাকায় সে তার ভাইদের নিকট থেকে টাকা এনে দিতে অস্বীকৃতি জানালে ৩০ জুলাই সকালে যৌতুক লোভী স্বামী জহুরুল, শ্বাশুড়ী বেলা খাতুন, ভাসুর রইচ উদ্দিন ও রবিউল ইসলাম শারীরিক নির্যাতন করে তাকে ঘরে বন্দী করে রাখে। প্রতিবেশীদের নিকট থেকে সংবাদ পেয়ে টুম্পার ভাই তরিকুল ইসলাম কুষ্টিয়া মডেল থানার শরণাপন্ন হয়। মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ নাসির উদ্দিনের নির্দেশে এসআই মোস্তাফিজুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে তাকে উদ্ধার করে। পরে আহত গৃহবধূ টুম্পাকে মিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: