কুষ্টিয়ায় অনাড়ম্বর পরিবেশে বিআরবি কেবল এর ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

রফিকুল ইসলাম : ‘অন্যতম বিশ্বে.. বাংলাদেশে শীর্ষে’ শ্লোগানে গৌরবময় সাফল্য, আস্থা আর বিশ্বাসে ৪১ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করেছে কেবল প্রস্তুতকারী শিল্প প্রতিষ্ঠান বিআরবি কেবলস লিমিটেড।  বুধবার সকাল ৯টায় কুষ্টিয়ায় বিসিক শিল্পনগরীতে বিআরবি’র কারখানা চত্ত্বরে মিলাদ মাহফিল, কেক কাটা, আলোচনা ও নানা ধরনের বিনোদনের মাধ্যমে এই প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়। সকালে বৃক্ষ রোপন, পতাকা তুলে ও পায়রা উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি বিআরবি গ্রুপের চেয়ারম্যান দেশ বরেণ্য শিল্পপতি মজিবর রহমান।  বিআরবি কেবল’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক শিল্পপতি পারভেজ রহমানের সভাপতিত্বে মিলাদ মাহফিল, দোওয়া অনুষ্ঠান ও আলোচনায় অংশ নেন বিভিন্ন দেশ বিদেশ থেকে আসা শুভানুধ্যায়ীগণ। আলোচনার আগে বিশাল আকৃতির কেক কাটেন অতিথিরা।  আলোচনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিআরবি গ্রুপের অন্যতম শিল্প প্রতিষ্ঠান এমআরএস’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক শিল্পপতি শামসুর রহমান, বাংলাদেশ ইলেক্ট্রিক্যাল এসোসিয়েশনের সভাপতি শাহাদত হোসেন, কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি রবিউল ইসলাম প্রমুখ। এছাড়াও বিভিন্ন দেশ থেকে আসা ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা বক্তব্য রাখেন।  জানা গেছে, গুনগত মানসম্পন্ন পণ্য উৎপাদনের মাধ্যমে বিআরবি কোম্পানী দেশ-বিদেশের মানুষের কাছে আস্থা অর্জন করেছে। এই কোম্পানীর অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মধ্যে কিয়াম মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজ লি., এমআরএস ইন্ডাস্ট্রিজ লি. ও বিআরবি পলিমার লি. এর মত বড় বড় শিল্প প্রতিষ্ঠান বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। এসব শিল্প প্রতিষ্ঠানের বাইরে সিকিউরিটিজ, এয়ারসার্ভিস, স্বাস্থ্যসেবা, কিয়াম ছিরাতুন নেছা মেমোরিয়াল ট্রাস্ট, শিক্ষা ও মানবসেবাসহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান বিআরবি শিল্প প্রতিষ্ঠানের আওতায় পরিচালিত হচ্ছে। আর এই প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার কুষ্টিয়ার কৃতিসন্তান দেশ বরেণ্য শিল্পপতি বিআরবি গ্রুপের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ মো. মজিবর রহমান। তিনি বেশ কয়েকবার সিআইপি নির্বাচিত হন। শিল্পপদক ও জাতীয় রপ্তানিতে বিশেষ অবদান রাখায় প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক কয়েকবার জাতীয় স্বর্ণপদক লাভ করেন। সব মিলিয়ে মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং দেশের গৌরব বয়ে আনার অন্যতম দাবিদার বিআরবি গ্রুপের স্বপ্নদ্রষ্টা মো. মজিবর রহমান নিজকে উৎসর্গ করেছেন কাজের পেছনে। নানা প্রতিকূলতা সত্তে¡ও ইস্পাত কঠিন দৃঢ়তা রয়েছে তার। কঠিন অধ্যাবসায় ও সততার সাথে কোন চেষ্টা করলে তার ফলাফল অবশ্যই ভাল হয়, এর বাস্তব প্রমান তিনি।  সূত্র জানায়, ১৯৭৮ সালের ২৩ অক্টোবর তিনি গড়ে তোলেন বিআরবি কেবল ইন্ডাস্টিজ লিমিটেড। পণ্যের গুনগত মান বজায় রাখার কারণে এ শিল্প প্রতিষ্ঠানটি বর্তমানে দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিশ^জুড়ে পরিচিতি লাভ করেছে। বিশ্বের আধুনিক যন্ত্রপাতি, উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার ও পণ্যের গুনগত মান নিয়ন্ত্রণের ফলে বিআরবি কেবলস্ ইন্ডাস্ট্রিজের বৈদ্যুতিক তারসহ অন্যান্য পণ্য সামগ্রী দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশের বাজারেও রফতানি হচ্ছে। পণ্য উৎপাদন ও গুনগত মান রক্ষার জন্য আইএসও সনদ লাভসহ বিশ্বের প্রায় ২শ’টি দেশের তিন হাজার কেবলস্ কোম্পানীর মধ্যে নির্বাচিত ৫০টি শীর্ষস্থানীয় কোম্পানী মধ্য থেকে বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং-এ কুষ্টিয়ার বিআরবি কেবলস্ ইন্ডাস্ট্রিজ ৩৩তম স্থান ও দেশের মধ্যে প্রথম স্থান লাভ করে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জলসহ এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।  এছাড়া মান সম্পন্ন পণ্য প্রস্ততকারী ও বিশেষ অবদান রাখার জন্য বিআরবি কেবলস্ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড বিভিন্ন সময় সরকারের কাছ থেকে নানা পুরস্কারে ভ‚ষিত হয়েছে। এরমধ্যে বাংলাদেশ এডুকেশন স্কলারশীপ ট্রাস্ট স্বর্ণপদক, শের-ই-বাংলা একে ফজলুল হক স্বর্ণপদক, ১০ম গোল্ডেন আমেরিকা এ্যওয়ার্ড, জাতীয় রফতানি ট্রফি (স্বর্ণ) বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। বর্তমানে ওই শিল্প প্রতিষ্ঠানটি দেশের শীষস্থানীয় বৈদ্যুতিক ওয়্যারস এন্ড কেবলস্ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান হিসাবে প্রতিষ্ঠা লাভ করেছে। এ শিল্প প্রতিষ্ঠানে ডোমেস্টিক কেবল থেকে ৩৩ কেভি এইচটিপিভিসি ও এক্সএলইপি কেবলস, ১৩২ কেভি এ্যালমুনিয়াম কন্ডাক্টর, এফআরএলএস কেবলস, জেলি ফিল্ড টেলিফোন কেবলস্ ও বৈদ্যুতিক ফ্যান তৈরি হচ্ছে। বিআরবি গ্রুপের নতুন সংযোজন হচ্ছে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ১শ’ মেগাওয়াট বিদ্যুত উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুত কেন্দ্র স্থাপন।  শুধুমাত্র নিজস্ব শিল্প কারখানার বিদ্যুত চাহিদা মেটাতে বিদ্যুত কেন্দ্রটিতে ১১ মেগাওয়াট উৎপাদনের ব্যবস্থা রয়েছে। জাপানের দাইহাতসু কোম্পানী থেকে আমদানিকৃত অত্যাধুনিক ৩টি ডুয়েল ফুয়েল জেনারেটরের মাধ্যমে উৎপাদিত ‘বিআরবি এনার্জি লিমিটেড’ নামকরণে তেলভিত্তিক ওই বিদ্যুত কেন্দ্রটি স্থাপন করা হয়। বিআরবি’র অন্যান্য শিল্প প্রতিষ্ঠানের মধ্যে কিয়াম মেটাল ইন্ড্রাস্টিজের তৈরি এ্যালমুনিয়াম তৈজষপত্র, ননস্টিক কিচেন ওয়্যার, প্রেসার কুকার, রাইচ কুকার, হটপট ইত্যাদি দেশের বাজারে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে এবং ক্রেতাদের কাছে সমাদৃত হয়েছে। পাশাপাশি এমআরএস ইন্ডাষ্টিজের আপ-কাস্টিং ও কন্টিন্যুয়াস কাস্ট পদ্ধতিতে আমদানি বিকল্প কপারওয়্যার রড ও এ্যালমুনিয়াম ওয়্যার রড ও কপার স্ট্রীপ উৎপাদন ও বাজারজাত হচ্ছে। ফলে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের পাশাপাশি বিআরবি গ্রুপ আর্থ-সামাজিক উন্নয়নসহ দেশের জাতীয় অর্থনীতিতে অবদান রাখছে।  বিআরবি গ্রুপের অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে ফার্নিচার ও ডেকোরেশনের জন্য কাঠের বিকল্প পার্টিকেল বোর্ড, লেমিনেশন বোর্ড, বৈদ্যুতিক লাইন ও পানির লাইনসহ গভীর-অগভীর নলক‚পের জন্য উন্নত মানের পিভিসি পাইপ উৎপাদিত হচ্ছে। এসব পণ্য সামগ্রীও গ্রাহকদের যথেষ্ট গ্রহণযোগ্য ও সমাদৃত হয়েছে। বিআরবি গ্রুপের শিল্প প্রতিষ্ঠানে বর্তমানে প্রায় ১০ হাজার শ্রমিক-কর্মচারী কাজ করছে। শিল্পপতি আলহাজ্ব বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মজিবর রহমান জানান, আর্থ-সামজিক উন্নয়ন ও শিল্প ভাবনা থেকেই তিনি শিল্পায়নে মনোনিবেশ করেন। পরবর্তীতে শিল্প-কারখানা প্রতিষ্ঠায় তার মেধা, অধ্যবসায় ও কঠোর পরিশ্রমের ফলে বিআরবি গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ দেশের বৃহৎ শিল্প প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে।  এই শিল্প প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি কুষ্টিয়াতে বিআরবি গ্রুপের চেয়ারম্যানের সহধর্মিনীর নামে ১৬তলা ভবনবিশিষ্ট সেলিমা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। এখানে দরিদ্র থেকে উচ্চবিত্ত শ্রেণির রোগিদের স্বাস্থ্যসেবা থাকবে। দেশের অত্যাধুনিক ও সর্বশ্রেষ্ঠ হাসপাতাল হবে বলে জানা গেছে।  এছাড়া ঢাকায় বিআরবি হসপিটালস লি. নামে বিআরবি’র আরেকটি অত্যাধুনিক হাসপাতাল চালু হয়েছে। বিআরবি কেবল ইন্ডাস্ট্রিজ লি. এর চেয়ারম্যান মো. মজিবর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র বিআরবি’র ব্যবস্থাপন্ াপরিচালক মো. পারভেজ রহমান, কনিষ্ঠপুত্র এমআরএস ইন্ডাস্ট্রিজ লি. এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শামসুর রহমান ও একমাত্র জামাতা কিয়াম মেটাল ইন্ডাস্ট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মিজবার রহমান তার সাথে হাতে হাত ধরে এ শিল্প প্রতিষ্ঠানকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: