কিশোরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে পাইলট,রবিউল ও শাপলার বিজয়

আনিছুর রহমান মানিক, ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি>>
নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন দুই একটি বিছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে।
রবিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে এ ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৬জন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৮জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৬জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি কম থাকায় তৈরি করা ভুয়া ব্যালট পেপার দিয়ে লাঙ্গল প্রতীকে ভোট দেয়া ও জাল ভোট প্রদানের সময় মাগুড়া বসুনিয়া পাড়ার মাসুদ মিয়ার স্ত্রী এছমোতারা বেগম (২২),মাগুড়া উত্তর পাড়ার মৃত মনসু আলীর ছেলে আনছার আলী (৫০),সবুজ পাড়া গ্রামের মোবারক আলীর ছেলে দিপু মিয়া (২২) ও মাস্টার পাড়া গ্রামের আব্বাস আলীর ছেলে আব্দুল কুদ্দুসকে (৫৫) আটক করে পুলিশ। তবে হাতে নাতে প্রমাণসহ ভুয়া ব্যালট পেপারসহ মাসুদ মিয়ার স্ত্রী এছমোতারা বেগম (২২), মাগুড়া উত্তর পাড়ার মৃত মনসু আলীর ছেলে আনছার আলী (৫০) আটক করায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তাদেরকে মুচলেকা নিয়ে এবং সবুজ পাড়া গ্রামের মোবারক আলীর ছেলে দিপু মিয়া (২২) ও মাস্টার পাড়া গ্রামের আব্বাস আলীর ছেলে আব্দুল কুদ্দুসকে (৫৫) ছেড়ে দেয়া হয়। তবে উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান রশিদুল ইসলামের লাঙ্গল প্রতীকের পক্ষে তৈরি করা ভুয়া ব্যালট পেপার নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যকর সৃষ্টি হয়েছে। রাত ১১টার দিকে উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মনোয়ার হোসেন আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন। বে-সরকারিভাবে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক স্বতন্ত্রপ্রার্থী শাহ্ মোঃ আবুল কালাম বারী পাইলট (আনারস) প্রতীকে ৩৭ হাজার ৪৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়। তার নিকটতম স্বতন্ত্র প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ঠিকাদার রশিদুল ইসলাম রশিদ (ঘোড়া) প্রতীকে ২৩ হাজার ৬শ ৭৬ ভোট পান। পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে রবিউল ইসলাম বাবু (টিয়া পাখি) প্রতীকে ২৯হাজার ৮শ ৩১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ভূবণ চন্দ্র মোহন্ত (চশমা) প্রতীকে ১৭হাজার ৮শ ৩৮ ভোট পান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে শাপলা বেগম (পদ্মফুল) প্রতীকে ২০হাজার ৬শ ৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী শিল্পী রাণী রায় (ফুলের টব) প্রতীকে ১৭হাজার ৬শ ৩১ ভোট পান। ফলাফলের সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুল কালাম আজাদ,নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট জাহাঙ্গীর আলম ও মেহেদী হাসান।

কিশোরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন,ভুয়া ব্যালট পেপার সংগ্রহ করে ভোট প্রদান করায় ২জনকে এবং জাল ভোট প্রদানের সময় ২জনকে আটক করা হয়। দু’জনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে মুচলেকা নিয়ে ও দু’জনকে এমনিতে ছেড়ে দেয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: