করোনাভাইরাস পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে মেডিক্যাল টিম

আল মাসুদ, পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি :  চীনে ‘করোনা ভাইরাস’ ছড়িয়ে পড়ায় পঞ্চগড়ের বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের ইমিগ্রেশন দিয়ে পারাপার হওয়া মানুষদের পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য মেডিক্যাল টিম বসিয়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। যদিও করোনা শনাক্তের কোনো যন্ত্র নেই সেখানে।
বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের ইমিগ্রেশন চেকপোস্টের একটি কক্ষে এই মেডিক্যাল টিম তাদের কার্যক্রম শুরু করে। এক স্বাস্থ্য সহকারী ও একজন কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার দ্বারা এই মেডিকেল টিম পরিচালিত হচ্ছে। ভারত, নেপাল ও ভুটান থেকে আসা যাত্রীদের মাত্রাতিরিক্ত জ্বর, সর্দি, কাঁশি, শ্বাসকষ্ট, গলা ব্যথা, হাঁচি হচ্ছে কি না জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরীক্ষার যন্ত্রের মধ্যে কেবল রয়েছে দুটো থার্মোমিটার। এছাড়া যাত্রীদের করোনা সম্পর্কে তথ্য জানিয়ে দেয়া হচ্ছে। কোনো যাত্রীর মধ্যে করোনার লক্ষণ পেলে দ্রুত তাকে এই রোগের পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য ঢাকায় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (আইইডিসিআর) পাঠানো হবে বলে জনিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। তবে এখন পর্যন্ত এই ইমিগ্রেশন দিয়ে যাতায়াতকারীদের মধ্যে এমন কোনো লক্ষণ পায়নি মেডি্যিাল টিম।
বাংলাবান্ধা কাস্টমসের সিপাই আনসার আলী বলেন, এখানে ইমিগ্রেশনের যাত্রীদের কেবল স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে। নেপাল, ভুটান ও ভারত থেকে আসা গাড়ি চালকরা কিন্তু বাদ পড়ে যাচ্ছে। তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষাও জরুরি।
মেডিক্যাল টিমের দায়িত্বে থাকা বাংলাবান্ধা ইউনিয়নের স্বাস্থ্য সহকারী শারমিন আক্তার বলেন, এখনো করোনা লক্ষণযুক্ত কোন ব্যক্তিকে আমরা পাইনি।
পঞ্চগড় সিভিল সার্জন ডা. মো. ফজলুর রহমান বলেন, মঙ্গলবার থেকে আমরা বাংলাবান্ধায় করোনা শনাক্তের জন্য মেডিক্যাল টিম বসিয়েছি। করোনা শনাক্তের কোনো যন্ত্র সেখানে নেই। আগত অসুস্থ যাত্রীদের বিবরণ শুনে যদি করোনার লক্ষণ যাওয়া যায় তবে তাকে ঢাকায় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে পরীক্ষা নিরিক্ষার জন্য পাঠানো হবে। যতদিন এই রোগের হুমকি থাকবে ততদিন বাংলাবান্ধায় প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত মেডিক্যাল টিম নিয়োজিত থাকবে। তবে উদ্বেগের কিছু নেই বলেও জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: