ঈশ্বরদীতে পুলিশের ধাওয়ায় ট্রাকের নিচে মোটরসাইকেল , ৩ বন্ধু মৃত্যুশয্যায়

পাবনা প্রতিনিধি >>

বুধবার (২১ আগস্ট) বিকেলে ঈশ্বরদী শহরের অরণকোলা ফকিরের মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ দুর্ঘটনার জন্য দায়ী পুলিশকে স্থানীয় জনতা আটকে রাখলেও পরে ঈশ্বরদী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।

আহত তিন বন্ধু হলেন পলাশ দাস (২১), বলয় দাস (১৯) ও বিপ্লব দাস (২২)। এরা তিনজনই ঈশ্বরদীর বহরপুর এলাকার বাসিন্দা।

আহত বিপ্লব দাস এবং প্রত্যক্ষদর্শীরা অভিযোগ করে জানান, বুধবার বিকেলে একটি মোটরসাইকেলে তিন বন্ধু দাশুড়িয়া যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে অরণকোলা ফকিরের মোড় এলাকায় ঈশ্বরদী আমবাগান পুলিশ ফাঁড়ির টিএএসআই মতিউর রহমান ওই মোটরসাইকেল থামাতে ইশারা করে। পুলিশের ইশারা অমান্য করায় পেছন থেকে আরেকটি মোটরসাইকেল নিয়ে তিনি তাদের পেছন থেকে ধাওয়া করেন। পুলিশের ধাওয়ায় দ্রুত মোটরসাইকেল চালানোর সময় সামনে থেকে আসা একটি ট্রাকের সঙ্গে ধাক্কা লেগে মোটরসাইকেলসহ তিন বন্ধু ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে। স্থানীয়রা দ্রুত এসে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করে। এসময় জনরোষে অবস্থা বেগতিক দেখে ওই এটিএসআই পালানোর চেষ্টা করলে স্থানীয়রা তার মোটরসাইকেলের চাবি কেড়ে নিয়ে তাকে আটকে রাখে। খবর পেয়ে ঈশ্বরদী থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তাকে উদ্ধার করে। এদিকে গুরুতর আহত তিন বন্ধুকে প্রথমে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে পলাশ ও বলয়কে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে সহকারী শহর উপপরিদর্শক (এটিএসআই) মতিউর রহমান বলেন, তাদের ধাওয়া করা হয়নি, পুলিশ দেখে ওরা ভয় পেয়ে পালাতে গিয়ে ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে।

ঈশ্বরদী আমবাগান পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক আব্দুল আনোয়ার হোসেন বলেন, এ ঘটনার জন্য এটিএসআই মতিউরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করে তিনি দায়ী হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ট্রাকের ড্রাইভার পালিয়ে গেছে। তবে ট্রাকটি আটক করে থানায় রাখা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: