ইসলামের দৃষ্টিতে প্রতিবেশীর অধিকার

লেখক : মাওলানা শামীম আহমেদ, সাঁথিয়া প্রতিনিধি, পাবনা >>

হাদীস শরীফে প্রতিবেশীর বহু অধিকার বর্ণিত হয়েছে। এক রেওয়ায়েতের বর্ণনা অনুযায়ী বাড়ীর চতুর্দিকে চল্লিশ বাড়ী পর্যন্ত সকলেই প্রতিবেশীর আওতাভুক্ত। তাছাড়া শহরে বা গ্রামে বাড়ীর পার্শ্ববর্তীগণ যেমনি প্রতিবেশী, তেমনি বাড়ী থেকে যার সঙ্গে একত্রে সফরে যাওয়া হয় বা বিদেশে গিয়ে একসঙ্গে সফর করা হয় এসব সফর সঙ্গী এবং মাদ্রাসা, স্কুল, কলেজ, অফিস,আদালত বা যে কোনো কর্মস্হলে একসঙ্গে যারা কিছুক্ষণের জন্য হলেও থাকে তারাও প্রতিবেশী। হোক সাময়িক প্রতিবেশী তবুও ততক্ষণের জন্য প্রতিবেশীর নির্দ্ধারিত অধিকার তাদের প্রাপ্য। বিভিন্ন হাদীসে বর্ণিত প্রতিবেশীর অধিকারসমুহ নিম্নরুপ।

১.সাহায্য সহযোগিতা চাইলে তা করা।

২.ঋণ চাইলে তা প্রদান করা।

৩.অসুস্হ হলে শুশ্রুষা করা।

৪.অভাবী হলে আর্থিকভাবে তার উপকার করা।

৫.কোনোরূপ কষ্ট পেলে (গরু -বাছুর, হাঁস-মুরগি বা ছেলে মেয়ে দ্বারা কোনো কিছু নষ্ট বা কোনো কিছুর ক্ষতি হলে ছবর করা।)

৬.প্রতিবেশীর বিবি,সন্তানাদি ও জীব-জন্তুর হেফাজত করা।

৭.  প্রতিবেশীর খুশির বিষয়ে খুশি প্রকাশ করা।

৮.প্রতিবেশীর কোন দু:খের বিষয় হলে সমবেদনা প্রকাশ করা।

৯.বিশেষ কোন রান্না -বান্না বা ফল -ফলাদির ব্যবস্হা হলে প্রতিবেশীকেও তা থেকে কিছু হাদিয়া দেয়া। সম্ভব না হলে গোপনে সেগুলো বাড়ির মধ্যে ঢুকানো এবং নিজের সন্তানেরা যেন তা নিয়ে বাইরে না আসে, যাতে প্রতিবেশীর সন্তানাদি তা দেখে মনক্ষুণ্ন না হয়।

১০.মৃত্যবরণ করলে তার জানাযার নামাজে অংশ গ্রহণ করা।

১১.প্রতিবেশীর সাথে সমঝোতা ব্যতীত উঁচু দেয়াল বা ইমারত বানিয়ে প্রতিবেশীর বাতাস বন্ধ করে না দেয়া।

১২.প্রতিবেশীর অনুমতি ব্যতীত প্রতিবেশীর বাড়ির আশ -পাশে ময়লা আবর্জনা ফেলে প্রতিবেশীকে দুর্গন্ধের কষ্ট না দেয়া। ।

হে আল্লাহ ! আমাদেরকে প্রতিবেশীর অধিকারের প্রতি যত্নবান হওয়ার তাওফিক দান করুন আমিন।।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
%d bloggers like this: